16137223_diseaseaz.png

অ্যালঝাইমার্স রোগ

 স্মৃতিভ্রম  একটি রোগ যা পূর্বে অযাচিত ব্যক্তির জ্ঞানীয় ক্ষমতা গুরুতর ক্ষতির দ্বারা চিহ্নিত করা হয়, যা স্বাভাবিক বৃদ্ধির থেকেই  হতে পারে। অ্যালঝাইমার্স রোগটি স্মৃতিভ্রমের সবচেয়ে সাধারণ রূপ। এটা বয়স্ক ব্যক্তিদের মধ্যে আরো সাধারণ ।

অ্যালঝাইমার্স এমন একটি রোগ যা ধীরে ধীরে মানুষের চিন্তাশক্তি, মনে রাখার ক্ষমতা, যে কোনও সাধারণ কাজ করার বুদ্ধি কমিয়ে দেয়। যদিও

এই মুহূর্তে বিজ্ঞানীরা এ বিষয়ে প্রতিদিন গবেষণা করছেন, তা সত্ত্বেও

অ্যালঝাইমার্সের প্রকৃত কারণ জানা যায়নি। এটি একধরনের ইডিওপ্যাথিক পীড়া।

ডিএসএম ৫ অ্যালঝাইমার্সের পরিভাষা পরিবর্তন করে নতুন নাম দিয়েছেন “অ্যালঝাইমার্স রোগের ফলে বৃহত্তর এবং ক্ষুদ্রতর স্নায়ুজ্ঞান সম্পর্কিত বিশৃঙ্খলা”।

 

তথ্য নির্দেশ-

www.cdc.gov

www.nia.nih.gov
www.nhs.uk

 

এই সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য যাচাই করেছেন ডঃ কে এস আনন্দ, স্নায়ুরোগ  বিভাগ, ডঃ আর এম এল হাসপাতাল, নিউ দিল্লি , ২৬.০৩.২০১৫।

উপসর্গ/লক্ষণ 

  • ভুলে যাওয়া
  • কোনও ভাষা বিশেষত  কারও নাম মনে করতে অসুবিধা
  •  কোনও নির্দিষ্ট বিষয়ে চিন্তা করা বা সমস্যা সমাধান করতে না পারা
  • আগের পরিচিত কাজ করতে সমস্যা
  • মনঃসংযোগে ব্যাঘাত
  • কোনও নির্দিষ্ট রাস্তা বা গন্তব্যে পৌঁছতে অসুবিধা
  • সামাজিক ব্যবহারে সমস্যা

পর্যায় 

  • প্রাক স্মৃতিভ্রম বা জ্ঞান সম্বন্ধীয় সামান্য ক্ষতি বা অ্যালঝাইমার্সের কারণে স্নায়ুজ্ঞান সম্পর্কিত বিশৃঙ্খলা – নিত্যদিনের জীবন সম্পর্কে যে বোধ বা জ্ঞান হারিয়ে গিয়েছে, তার মোকাবিলা করতে নির্দিষ্ট পদ্ধতি অবলম্বন করা।
  • সামান্য স্মৃতিভ্রম বা অ্যালঝাইমার্সের কারণে বৃহত্তর ক্ষুদ্রতর স্নায়ুজ্ঞান সম্পর্কিত বিশৃঙ্খলা – যেহেতু এই পর্যায়ে একজন রোগী প্রতিদিনের কাজকর্ম সঠিকভাবে করতে পারেন না, যেমন অর্থ সংক্রান্ত কোনও বিষয়ে অন্য ব্যক্তির  সাহায্যের প্রয়োজন হয়।  
  •  নিয়ন্ত্রিত স্মৃতিভ্রম বা অ্যালঝাইমার্সের কারণে বৃহত্তর স্নায়ুজ্ঞান সম্পর্কিত বিশৃঙ্খলা – দৈনন্দিন জীবনের কাজকর্ম করতে গিয়ে অনেকে নিজের কোনও  ক্ষতি করে ফেলেন, তাই সবসময় কারও সাহায্য প্রয়োজন হয়।
  •  তীব্র বা গুরুতর বা অ্যালঝাইমার্সের কারণে বৃহত্তর স্নায়ুজ্ঞান সম্পর্কিত বিশৃঙ্খলা – এই পর্যায়ে যে কোনও রোগী সাধারণ কাজও করতে পারে না, সম্পূর্ণভাবে অন্যের উপর নির্ভরশীল হয়ে পরেন।

তীব্র স্মৃতিভ্রমের রোগীরা হাঁটা , কথা বলা, নিজের খেয়াল রাখার ক্ষমতা সম্পূর্ণ হারিয়ে ফেলেন। খাওয়াদাওয়া , জামাকাপড় পরিষ্কার করা এমনকি বাথরুম যাওয়ার সময়েও অন্যের সাহায্যর প্রয়োজন হয়। যোগাযোগের ক্ষেত্রে, নাম মনে করতে, কোনও অবস্থার বর্ণনা করার জন্য সঠিক শব্দ প্রয়োগও করতে পারেন না তাঁরা।

তথ্য নির্দেশ-

www.nia.nih.gov
http://www.alz.org
http://www.dsm5.org

 

বিজ্ঞানীরা এখনও অ্যালঝাইমার্স রোগের  প্রকৃত কারণ সম্পর্কে জানতে পারেননি। অ্যালঝাইমার্স রোগের  উৎস হিসাবে বিভিন্ন কারণগুলি নিয়ে অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

  • উৎস সম্বন্ধীয় - অ্যালঝাইমার্স রোগের মধ্যে অ্যাপোলিপোপ্রোটিন (এপোই ) নামের একটি জিন নিহিত থাকে। এই জিনের বিভিন্ন ধরনের গঠন এবং রূপ রয়েছে। যদিও কোনও কোনও মানুষ এপোই ε৪   জিনের বাহক হলেও  অ্যালঝাইমার্স রোগে আক্রান্ত নাও হতে পারেন, আবার অনেকক্ষেত্রে এপোই ε৪   জিনের বাহক না হলেও অ্যালঝাইমার্স রোগে আক্রান্ত  হতে পারেন অনেকে। বিশেষজ্ঞদের মতে, কিছু কিছু অতিরিক্ত জিন যেমন, প্রেসিনিলিন ১, ক্রোমোজোম ১৪-এর রূপান্তর,  ক্রোমোজোম ২১ এবং প্রেসিনিলিন ২ জিনে  এপিপি ( অ্যামিলয়েড  প্রিকিউসর প্রোটিন) রূপান্তর, ক্রোমোজোম ১-এর রূপান্তর অনেক সময় পরবর্তীকালে অ্যালঝাইমার্স রোগের সূত্রপাত ঘটায়। সারা বিশ্ব জুড়ে বিজ্ঞানীরা  অ্যালঝাইমার্স রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি নিয়ে গবেষণা করছেন।
  • পরিবেশ/ জীবনযাপন সংক্রান্ত কারণ- অ্যালঝাইমার্স রোগের সঙ্গে হৃদয় সংক্রান্ত অসুখ, স্ট্রোক, উচ্চ রক্তচাপ, মধুমেহ, অতিরিক্ত ওজন, হাইপারলিপিডেমিয়া যুক্ত থাকে।

তথ্য নির্দেশ-  www.nia.nih.gov

 

 

 

 

 

প্রাথমিক পর্যায়ে এই রোগ নির্ণয় করা বেশ কঠিন। প্রথমে মানুষ বুঝতেই পারে না যে উপসর্গগুলি দেখা যাচ্ছে, সেগুলি  অ্যালঝাইমার্স রোগের কারণে হচ্ছে নাকি অন্য কারণে।   অ্যালঝাইমার্স রোগের প্রথমদিকে স্ট্রোক , টিউমর, পারকিনসন্স রোগ, ঘুমের অসুবিধা, মনঃসংযোগে ব্যাঘাতের মত নানা রোগ দেখা যায়, যা সারিয়ে তোলা সম্ভব ।  

অ্যালঝাইমার্স রোগ প্রাথামিক পর্যায়ে ধরা পড়লে চিকিৎসা তাড়াতাড়ি শুরু করা সম্ভব হয়, পাশাপাশি রোগীদের রোগ নির্ণয়ের জন্য যেসব পরীক্ষানিরীক্ষার মধ্যে দিয়ে যেতে হয় , তা থেকেও কিছুটা মুক্তি পাওয়া যায়।

যদিও কেবলমাত্র মৃত্যুর পরই  অ্যালঝাইমার্স রোগ নিশ্চিতভাবে নির্ণয় করা সম্ভব হয় , তবুও কিছু উপসর্গের মাধ্যমে চিকিৎসকেরা এই রোগ নির্ণয়ের চেষ্টা করেন।

১) রোগীর বর্তমান স্বাস্থ্যের অবস্থা এবং আগের যাবতীয় চিকিৎসা সংক্রান্ত ইতিহাস

২)  রোগীর আচরণ এবং ব্যক্তিত্বের পরিবর্তন

৩) ভাষা, অঙ্কের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান , চিন্তাশক্তি সম্পর্কিত জ্ঞানীয় পরীক্ষা করা।

8) রোগের কারণ জানতে রক্ত এবং মূত্র পরীক্ষার মত সাধারণ স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা।  

৫) মস্তিষ্কের পরিস্থিতি খুঁটিয়ে দেখার জন্য সিটি/এমআরআই করানো।

তথ্য নির্দেশ-

www.nia.nih.gov
www.lifestyleoptions.com

 

অ্যালঝাইমার্স রোগের পুরোপুরি নিরাময় সম্ভব না হলেও, ঔপসর্গিক উপশম দেওয়া হয়। অ্যালঝাইমার্স রোগ সংক্রান্ত বর্তমান চিকিৎসা প্রণালীকে তিনটিভাগে ভাগ করা যেতে পারে যেমন, চিকিৎসা, মানসিক-সামাজিক এবং যত্ন প্রদান।

চিকিৎসা –

কোলিনেসটেরেস ইনহিবিটর- অ্যাসিটাইকোলিন এমন একটি রাসায়নিক যা মস্তিষ্কের কোষগুলির মধ্যে স্নায়ু সংকেত এবং বার্তা বিনিময়ের কাজ করে। অ্যালঝাইমার্স রোগের ক্ষেত্রে এছাড়া আরও অন্য ওষুধ প্রয়োগ করা হয়।   

১) ডোনেপেজিল

২) রিভেসটিগমি

৩) গ্যালানটামিন

খুব কম থেকে মাঝারি   অ্যালঝাইমার্স রোগের ক্ষেত্রে এই ওষুধগুলি ব্যবহার করা হয়।

এনএমডিএ রিসেপ্টর প্রতিরোধকারী

মিমান্টাইন ওষুধ মাঝারি থেকে তীব্র অ্যালঝাইমার্স রোগের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।

মানসিক-সামাজিক

মনস্তাত্ত্বিক হস্তক্ষেপ  চিকিৎসা পদ্ধতিতে অতিরিক্ত পথ  হিসাবে ব্যবহার করা হয়,  এছাড়া  সহায়ক, জ্ঞানীয় এবং আচরণগত পদ্ধতি হিসাবে শ্রেণীভুক্ত করা যেতে পারে।

যত্ন প্রদান-

অ্যালঝাইমার্স রোগীদের সেরে ওঠার সম্ভাবনা যেহেতু খুব কম থাকে, তাঁরা নিজেদের চাহিদা, কাজগুলি করতে পারেন না, তাই এই রোগীদের ক্ষেত্রে যত্ন প্রদান একটি আবশ্যিক পদ্ধতি। এক্ষেত্রে অত্যন্ত সাবধনতার সঙ্গে রোগীদের ওষুধ দেওয়া প্রয়োজন।

তথ্য নির্দেশ- www.nia.nih.gov

 

অ্যালঝাইমার্স রোগ প্রতিরোধের জন্য কোন বিশেষ পদ্ধতি বা কাজের কার্যকারিতা সমর্থন করার  কোন সুনির্দিষ্ট প্রমাণ নেই। যদিও কিছু নির্দিষ্ট পথ অবলম্বন করলে   ডিমেনশিয়া বা স্মৃতিভ্রমের সূত্রপাত বিলম্বে শুরু হয়। মানসিকভাবে সুস্থ থাকার উপায়-

১) বই পড়া

২) মন ভাল করার জন্য কিছু লেখা

৩) বিভিন্ন রকম বাদ্যযন্ত্র বাজানো

৪) বয়স্ক শিক্ষায় অংশগ্রহন করা

৫) খেলাধূলা করা

৬) সাঁতার কাটা

৭) দলগত খেলা

৮) প্রতিদিন হাঁটা

৯) এছাড়া অন্যান্য বিনোদনমূলক কাজ করা

 

তথ্যনির্দেশ

www.nhs.uk

 

  • PUBLISHED DATE : Jan 24, 2019
  • PUBLISHED BY : NHP Admin
  • CREATED / VALIDATED BY : Paulami
  • LAST UPDATED ON : Jan 24, 2019

Discussion

Write your comments

This question is for preventing automated spam submissions
The content on this page has been supervised by the Nodal Officer, Project Director and Assistant Director (Medical) of Centre for Health Informatics. Relevant references are cited on each page.